July 13, 2024

স্বদেশ Tribune

গণ মানুষের খবর

নগরকান্দায় পূজা উদযাপন কমিটির সভায় দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি

1 min read

বেলায়েত হোসেন লিটনঃ

ফরিদপুরের নগরকান্দায় উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভায় হট্টগোল ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে।
এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরলে বিষয়টি নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়।
রবিবার বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এই ঘটনা ঘটে।
সভায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সরদার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম ইমাম রাজী টুলু, থানা তদন্ত কর্মকর্তা বিকাশ চন্দ্র মন্ডল, ভাইস- চেয়ারম্যান শেখ চুন্নু, ও পৌর মেয়র নিমাই সরকার উপস্থিত ছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নগরকান্দা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কমিটি দুইটি ।
যার একটির সভাপতি বিধান চন্দ্র মন্ডল ও অপরটির সভাপতি বাবু মনোরঞ্জন বিশ্বাস।
একই উপজেলায় দুইটি কমিটি থাকায় বিভিন্ন সময় প্রশাসনিক ও সামাজিক জটিলতা তৈরী হয়।
যার সমাধানের জন্য গতকাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম ইমাম রাজী টুলু দুই পক্ষকে নিয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করেন।
উদ্যেশ্য ছিলো দুই পক্ষের বিবাদ মিটিয়ে সবার সাথে আলোচনা করে গ্রহনযোগ্য একটি কমিটি গঠন করা।
সেই লক্ষেই সভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু সভা চলাকালীন বিধান মন্ডল ও মনোরঞ্জন বিশ্বাসের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি থেকে শুরু হয় মারামারি।
পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপস্থিত আনসার সদস্যরা তাদের নিয়ন্ত্রন করেন। এর ফলে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই পন্ড হয়ে যায় সভা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম ইমাম রাজি টুলু বলেন, আমি এখানে নতুন যোগদান করেছি, এখনো সবাইকে সেভাবে চিনি না। এখানে পূজা উদযাপন পরিষদের দুইটি কমিটি রয়েছে। প্রতিদিনই দুই পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে নালিশ করতে আসে। আবার তারাই আমাকে বলেছে সবাইকে নিয়ে বসে দুই পক্ষকে এক করে দিতে। সেই লক্ষ্যেই উপজেলায় সভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু হট্টোগোলের কারনে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা শেষ করতে হয়। পরে তাদের দুই পক্ষকে বুঝানো হয়েছে, এটি নিয়ে যেন পরবর্তীতে দুই পক্ষ কোন ঝামেলা না করে।
এই বিষয়ে নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র ও পূজা উদযাপন কমিটির সাবেক সভাপতি নিমাই চন্দ্র সরকার জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অত্যান্ত ভালো একটা উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু সেটি সফল হয়নি। যেটি ঘটেছে তা ন্যাক্কারজনক একটি ঘটনা।
বিধান মন্ডল ও মনোরঞ্জন বিশ্বাসের সমর্থকরা কথা কাটাকাটি থেকে হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়ে যায় সভা চলাকালীন সময়ে। এ বিষয়টি নিয়ে এখন কোন সমস্যা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.