July 17, 2024

স্বদেশ Tribune

গণ মানুষের খবর

সালথায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত একাধীক

ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় গট্রি ইউনিয়নের ভাসুয়ার কান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় একাধীক ব্যাক্তির আহতের খবর পাওয়া গেছে। গত ১৩ ই মার্চ রবিবার এ সংঘর্ষের ঘটনায় ধলামিয়াসহ ৭ জনকে পিটিয়ে রক্তাত্ব জখম করেছে প্রতিপক্ষ। স্থানীয় দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে এর মধ্যে লিখন শেখ নামে এক যুবকের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

ধলামিয়া এর অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, রবিবার আনুমানিক সকাল ৮ ঘটিকার সময় একই গ্রামের প্রতিপক্ষ দেলোয়ার মাতুব্বর (৫০) এর বাড়ির সামনে দিয়ে বাজারে যাওয়ার সময় দেলোয়ারসহ অন্তত ১৪/১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল লাঠি সোঠা ও বিভিন্ন দেশিয় অস্ত্র সস্ত্রে সজি¦ত হয়ে অতর্কিত ভাবে হামলা চালায় ধলামিয়ার উপর। এ সময় তার ডাকচিৎকারে পার্শব‌র্তী বাড়ির লিখন শেখ (২৫), শামিম শেখ (২৮), দুলাল শেখ(৫২), আনসার মাতুব্বর(৩৫), জামান মুন্সি (৩৬), মুরাদ শেখ(৪০)সহ ৭জন বাঁধা দিতে এগিয়ে আসলে তাদেরকেও পিটিয়ে রক্তাত্ব জখম করে। এসময় হামলাকারি দেলোয়ার মাতুব্বরসহ তার সমর্থন কারি শওকত হায়দার (৪৮), সাকু মাতুব্বর (৩৫), পারভেজ মাতুব্বর (৩৮), হাসান শেখ (৪০), জয়নাল শেখ (৪৫), মিজান মাতুব্বর (৪৬), বিল্লাল মাতুব্বর (৫০), বাদল মাতুব্বর (৪৫), তৈয়াব শরীফ (৫০) হেলাল মাতুব্বর (৪৬), রাসেল কাজী (৪০) মুন্নু শেখ (৫০), রিপন মাতুব্বর (৩৬)সহ অন্তত ১৪/১৫ জন সংঘবদ্ধ হয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় গট্রি ইউনিয়নের ৩ নং আওয়ামীলীগ সভাপতি ধলামিয়াকে উদ্ধারে আসা ঐ ব্যাক্তিদের উপর দেশীয় অস্ত্র ঢাল, কাতরা, ছেনদা, রামদা, বল্লম, টেটা দিয়ে হামলা চালিয়ে রক্তাত্ব জখম করে। তবে প্রতিপক্ষ দেলোয়ার গংদের সমর্থনকারিরাও হামলা শিকার হয়েছে বলে জানা যায়। এদিকে ধলামিয়াসহ হাসাপাতালে ভর্তিরত রোগীগের বিষয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, লিখন নামের একজনের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। তবে অন্যান্য আহতদের চিকিৎসার পর বর্তমানে তাদের অবস্থার উন্নত হয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বিএনপির সমর্থকারী দেলোয়ার মাতুব্বর স্থানীয় আওয়ামীলাগ নেতাদের হাত করে নিজেকে আওয়ামীগ নেতা পরিচয় দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরেই এলাকায় আধিপত্ত বিস্তারের চেষ্টা চালিয়ে আসছে। এ ছাড়াও দলীয় প্রভাব ব্যবহার করে নানা এলাকার ছোট খাটো বিষয়কে বড়ো করে দুপক্ষের সমোঝতার নাম করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে থাকে বলে জানান একই এলাকার লিটন ফকির, ইমরান, রাহাত মাতুব্বর, মসজিদেও সভাপতি হামিদ মাতুব্বর, পারুলী বেগম, ফাতেমা বেগম, আমেনা বেগমসহ একাধীক স্থানীয় জনতা। এই আওয়ামীলীগের অনুপ্রবেশকারি দেলোয়ার এর সকল অপর্কম বন্ধপুর্বক আওয়ামীলীগের দলীয় ভামুর্তি রক্ষাসহ এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তপুর্বক দোষীদেও আইনের আওতার আনার জন্য দাবি জানিয়েছেন ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আহত ধলামিয়াসহ এলাকাবাসী। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উক্ত ঘটনায় কোন পক্ষই মামলা দায়ের করেনি। তবে মামলা প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। উক্ত বিষয়ে অভিযুক্ত দেলোয়ার মাতুব্বর এর বক্তব্য জানার জন্য তার বাড়িতে গেলে কাউকেই পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.